শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

সিলেটের‘আকমল’পর্তুগালে সেরা তৃতীয় রেমিট্যান্সযোদ্ধা নির্বাচিত

  • প্রকাশের সময় : ২৫/০৩/২০২৩ ১১:১৪:০৭
এই শীতে ভাঙন আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের
Share
9

মোহাম্মদ আকমল হোসাইন।জন্ম তার সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা রামপাশা ইউনিয়নের দশদল গ্রামে।পিতার নাম মৃত আব্দুল গণি।বিগত ১৩ বছর আগে পাড়ি জমান সূদুর পর্তুগালে। এখন তার কর্মস্থল পর্তুগালের লিসবনে।১৩ বছরেই তিনি হয়ে উঠেছেন সেরা রেমিট্যান্স যোদ্ধার একজন।এ বছর পর্তুগাল থেকে অর্জিত টাকা দেশে বৈধ্যভাবে পাঠিয়ে তিনি হয়েছেন দেশের তৃতীয় সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রদানকারী।

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখায় তৃতীয় রেমিট্যান্স যোদ্ধা হিসেবে তাকে রাষ্ট্রিয় সম্মাননা দিয়েছে পর্তুগাল দূতাবাস। গত ১৭ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে রেমিট্যান্স সম্মাননা সার্টিফিকেট, ক্রেস্ট ও অগ্রাধিকারভিত্তিক সেবা কার্ড প্রদান করেন বাংলাদেশ পর্তুগালের রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবন, প্রথমবারের মত পর্তুগালে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য রেমিট্যান্স সম্মাননা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।এবার আবেদনের প্রেক্ষিতে যাচাই বাছাই করে বৈধপথে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণের মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখায় ১০ জনকে স্বীকৃতি দিয়ে সম্মাননা প্রদান করে দূতাবাস। এই ১০ জনের মধ্যে ৩য় হয়েছেন সিলেটের বিশ্বনাথের মোহাম্মদ আকমল হোসাইন।

এ বিষয়ে আকমল হোসাইন মুঠোফোনে বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের মাধ্যমে আমি ৩য় নির্বাচিত হয়েছি। আমাকে সম্মাননা ও স্বীকৃতি প্রদান করায় আমি পর্তুগালে অবস্থানরত সকল রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ দূতাবাসকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি, আপনাদের এই সম্মাননা ও স্বীকৃতি সকল প্রবাসীদেরকে আরো উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত করবে।


সিলেট প্রতিদিন / এমএ


Local Ad Space
কমেন্ট বক্স
© All rights reserved © সিলেট প্রতিদিন ২৪
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি