শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫২ অপরাহ্ন

রোজাদারদের মুখে হাসি ফুটালো ‘সেভ সিলেট’

  • প্রকাশের সময় : ১৪/০৩/২০২৪ ১১:৪০:৩৬
এই শীতে ভাঙন আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের
Share
164

মশাহিদ আলী : ঘড়ির কাটায় তখন বিকাল ৫টা। ঘরমুখী মানুষ। কিন্তু একদল তরুণ হঠাৎ এসে হাজির হলো কয়েকটি ব্যানার হাতে নিয়ে। রাস্তার পাশে টাঙালো ব্যানার। ব্যানার টাঙানো দেখে অবকা দৃষ্টিতে তাকালেন পথচারীরা। কেউ কানে কানে ফিসফিস করে কথা বলছিলেন আর কেউবা ছবি তুলে ফিরছিলেন বাড়িতে। কিন্তু ওই তরুণরা ততক্ষণে রাস্তার পাশে বসিয়ে দেয় পাটি। আর সেই পাটিতে একে একে সারিবদ্ধভাবে বসতে থাকেন নানা বয়সের মানুষ। সবাই যেন অপেক্ষা করছিলেন কিছু একটার জন্য। কিছু সময় পর হাসি ফুটলো বসে থাকা সবার মুখে। কিন্তু কেন? এই হাসি ফুটার কারণ হলো সবাই হাতে পেলেন ইফতারের প্যাকেট। এমনি এক চিত্র দেখা যায় বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের সামনে।


প্রতি বছরের ন্যায় এবারো পথচারী ও অসহায় মানুষের মুখ হাসি ফুটাতে এমন আয়োজন করেছে সামাজিক সংগঠন ‘সেভ সিলেট’। বুধবার বিকাল ৫টায় সেভ সিলেট’র প্রজেক্ট ‘সরাইখানা’র ইফতার আতিথেয়তার অংশ হিসেবে পথচারী, নারী, শিশু, বৃদ্ধ নির্বিশেষে সকল শ্রেণি-পেশার শতাধিক মানুষের মাঝে বিনামূল্যে ইফতার বিতরণ করা হয়।


জানা যায়, প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও পবিত্র রমজান মাসব্যাপী পর্যায়ক্রমে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডসহ বিভাগের বিভিন্ন জায়গায় আয়োজন করছে ইফতার বিতরণের। এ বছর সিলেট বিভাগের ১লাখ মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ করা হবে।


সরেজমিনে সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ইফতারে অংশ নিতে রিকশা চালক, অসহায় নারী-পুরুষ, পথচারী ও শিশুরা বসে আছেন। একটি মাইক্রোবাসে করে তৈরি করা ইফতারের প্যাকেট নিয়ে হাজির হয়েছেন সেভ সিলেটের স্বেচ্ছাসেবীরা। তারা সবাইকে সারিবদ্ধভাবে বসিয়ে পানির বোতল ও তৈরিকৃত ইফতারের প্যাকেট হাতে তুলে দিচ্ছেন।প্যাকেট হাতে পেয়ে অনেক খুশি ইফতার খেতে আসা লোকজন।


স্বামীকে নিয়ে ইফতার করতে আসা নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক নারী বলেন, সারাদিন রোজা রাখার পর এখন ইফতার করবো। তাদের এমন উদ্যোগের কারণে আজ আমরা ইফতার করতে পারছি।আল্লাহ কাছে দোয়া করি তারা যেন আগামীতে আরও বেশি বেশি করে তারা যেন মানুষের মাঝে ইফতার দিতে পারে।


আব্দুল জলিল নামে একজন বলেন, প্রথম রমজানেও তারা আমাদেরকে ইফতার দিয়েছিল সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার সামনে। আজকেও দিচ্ছে। আমরা তাদের অপেক্ষায় থাকি তারা ইফতার নিয়ে আসা আমরা এখানে বসে ইফতার করতে পারছি।


সংগঠনটির সমন্বয়ক দেলওয়ার হোসেন বলেন, ২০২০ সালে সেভ সিলেট’র যাত্রা শুরু। আমাদের ২৬৩ প্রজেক্ট রয়েছে। তার মধ্যে সরাইখানা একটি অন্যতম প্রজেক্ট। এই সরাইখানার মাধ্যমে আমরা মানুষের আতিথিয়তা করি। সিলেট নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টসহ বিভাগের প্রতিটি উপজেলায় আমাদের সংগঠনের সদস্যরা ইফতার বিতরণের আয়োজন করেন।


তিনি বলেন, গত বছর আমরা এক লাখ মানুষের হাসি ফুটিয়েছিলাম ইফতার বিতরণ করে। এবছরও আমরা ১ লাখ মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে আমাদের কার্যক্রম প্রথম রমজান থেকে শুরু হয়েছে।ধারাবাহিকভাবে বিভাগের প্রতিটি উপজেলায় এই কার্যক্রম শুরু হবে।


সিলেট প্রতিদিন / এমএ/এমএনআই


Local Ad Space
কমেন্ট বক্স
© All rights reserved © সিলেট প্রতিদিন ২৪
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি