রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

খুলনাকে হারিয়ে সিলেটের টানা দ্বিতীয় জয়

  • প্রকাশের সময় : ০৯/০২/২০২৪ ০৫:৩৭:০১
এই শীতে ভাঙন আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের
Share
25

চলতি বছরের বিপিএলে প্রথম চার ম্যাচেই জয় তুলে নিয়ে উড়তে থাকা খুলনা টাইগার্স দলটি এখন হেরেই চলেছে।


শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টানা তৃতীয় ম্যাচে তৃতীয় হারের স্বাদ পেয়েছে এনামুল হক বিজয়ের দল।


অন্যদিকে বিপিএলে টেবিল পয়েন্টের একেবারে তলানিতে থাকা দল সিলেট স্ট্রাইকার্স টানা দ্বিতীয় ম্যাচে তুলে নিয়েছে দারুণ জয়। তারা খুলনাকে হারিয়েছে ৫ উইকেট আর এক ওভার হাতে রেখে। এটি খুলনার টানা তৃতীয় হারা। এই ম্যাচে জয় পেয়ে টানা দুই জয়ে প্লে অফের আশা টিকে রইলো সিলেটের।


খুলনার দেওয়া ১৫৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৬৫ রানেই ৩ উইকেট হারায় খুলনা। ম্যাচ জিততে শেষ ৪ ওভারে সিলেট স্ট্রাইকার্সের প্রয়োজন ছিল ৩২ রান। সুমন খান ও নাহিদুল ইসলাম দুই ওভারে ১৩ রান দিয়ে খুলনা টাইগার্সকে তখনও ম্যাচে রেখেছিলেন। তাতে শেষ ১২ বলে ১৯ রান করতে হতো সিলেটকে।


১৯তম ওভারে রুবেল হোসেনের হাতে বল তুলে দিলেন এনামুল হক বিজয়। রায়ান বার্লের বিপক্ষে পেরেই উঠতে পারলেন না রুবেল। তিন ছক্কা ও এক চারে ডানহাতি এই পেসার দিলেন ২৪ রান। তাতেই টুর্নামেন্টের শুরুতে উড়তে থাকা খুলনার হ্যাটট্রিক হার। ৫ উইকেটের জয়ে টুর্নামেন্টে এখনও টিকে রইলো সিলেট।

সিলেটের হয়ে আজ ওপেনিংয়ে নামেন দুই বিদেশি ক্রিকেটার সামিত প্যাটেল ও হ্যারি টেক্টর। তবে তারা আজ ব্যর্থ ছিলেন নিজেদের জুটিকে বেশিদূর নিয়ে যেতে। দলীয় ১৩ রানে সামিত প্যাটেলের বিদায়ে ভেঙে যায় এই জুটি। ৯ বলে ১৩ রান করা সামিত প্যাটেল নাহিদুল ইসলামের বলে লং অনে এভিন লুইসের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান সাজঘরে।


সামিত প্যাটেলের বিদায়ের পর নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে জুটি বাঁধেন হ্যারি টেক্টর। এই জুটিতে ভর করে ঘুরে দাঁড়াতে থাকে সিলেট।অবশেষে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা এই জুটিকে থামান মার্ক দেয়াল। মার্ক দেয়ালের বলে নাহিদুল ইসলামের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান ১৬ বলে ১৮ রান করা শান্ত। তার বিদায়ে ভাঙে ৫২ রানের জুটি।


শান্তর পথ ধরে একই ওভারে সাজঘরে ফিরে যান জাকির হাসানও। মার্ক দেয়ালের বলে লং অনে রুবেল হোসেনের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন জাকির। তার বিদায়ে ৬৫ রানেই ৩ উইকেট হারায় সিলেট।


৬৫ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে জুটি গড়েন হ্যারি টেক্টর। এই জুটিতে ভর করে ১৩ ওভার ৫ বলেই দলীয় শতক পূর্ণ করে সিলেট। তবে দলীয় শতক পূর্ণ করার পর নিজেদের জুটিকে আর বেশিদূর নিয়ে যেতে পারেননি তারা। দলীয় ১০৭ রানে মোহাম্মদ মিঠুনের বিদায়ে ভাঙে ৪২ রানের জুটি।


সিলেট প্রতিদিন / এমএ


Local Ad Space
কমেন্ট বক্স
© All rights reserved © সিলেট প্রতিদিন ২৪
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি