সিলেটে এবার পদত্যাগ করছেন জাসাসের কয়েকশ নেতাকর্মী!
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩২ পূর্বাহ্ন

মশাহিদ আলী

প্রকাশ ২০২১-০৮-২৬ ০৬:০৩:৪৯
সিলেটে এবার পদত্যাগ করছেন জাসাসের কয়েকশ নেতাকর্মী!

সিলেটে  দীর্ঘদিন পর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কমিটি ঘোষণার পর থেকে শুরু হয়েছে পদত্যাগের হিড়িক। শুরুতে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান জামান। বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে তিনি তার পদ থেকে সরে দাঁড়ান।এরপর থেকে শুরু হয়েছে অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান জামানসহ তার অনুসারী পদত্যাগ।

এবার জামান ইস্যুতে স্বেচ্ছাসেবক দল ও তাঁতীদলের শীর্ষ পর্যায়ের পর  যেকোন সময় পদত্যাগ করতে পারেন সিলেট জাসাস নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, গত ২১ আগষ্ট নবগঠিত সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিকে ভারসাম্যহীন, নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন, পকেট কমিটি উল্লেখ করে পদত্যাগ করে যুগ্ম আহ্বায়কসহ আরও ১১ নেতা। এর মধ্যে সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন- যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ বক্স, সদস্য মওদুদুল হক, শহীদুল ইসলাম কাদির, আলতাফ হোসেন বিল্লাল, আমিনুল হক বেলাল ও শাহিদুল ইসলাম চৌধুরী লাহিন। মহানগর কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন- সদস্য আব্দুর রকিব তুহিন, রুজেল আহমদ চৌধুরী, আব্দুল হান্নান ও আক্তার আহমদ। আরেকজনের নাম জানা যায়নি।

নবগঠিত কমিটির এসব নেতাকর্মীরা শনিবার (২১ আগস্ট) কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন।

এর পর দিন ২২ আগস্ট সিলেট মহানগর জাতীয়তাবাদী তাঁতীদল থেকে তিন শীর্ষ নেতা পদত্যাগ করেছেন। তাঁতীদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর পদত্যাগ পত্র জমা দেন কেন্দ্রীয় তাঁতীদলের সহ সভাপতি ও মহানগর তাঁতীদলের সভাপতি মো. ফয়েজ আহমদ দৌলত, সাধারণ সম্পাদক হাজী শওকত আলী, সংগঠনিক সম্পাদক মো. আব্দুল গফ্ফার।

পদত্যাগ পত্রে তারা উল্লেখ করেন, গত ১৭আগস্ট সিলেট মহানগর জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবকদলের আহবায়ক কমিটি ঘোষনা করা হয়। ঘোষিত কমিটিতে তৃনমুলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের যথাযত মূল্যায়ণ করা হয় নি, তৃণমুল নেতৃত্বের প্রতিফলন ঘটেনি। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সমন্বয়ের মাধ্যমে কমিটি গঠনের জন্য বার বার বললেও দায়িত্বশীলরা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কথায় কর্ণপাত করেন নি। সেজন্য তারা  জাতীয়তাবাদী তাঁতীদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর পদত্যাগ পত্র জমা দেন।

এদিকে গতকাল বুধবার সিলেটে স্বেচ্ছাসেবক দলের ১৩ উপজেলার দায়িত্বশীলসহ শতাধিক নেতাকর্মী একযোগে পদত্যাগ করেছেন। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা পদত্যাগ করলেও তাদের সবার মুখে একই বাক্য উচ্চারিত হচ্ছে। অভিন্ন অভিযোগ তাদের সবার। দলে ত্যাগী, পরীক্ষিতদের মূল্যায়ণ নেই বরং যোগ্যদের বেছে বেছে ‘অপদস্ত’ করা হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবি দিয়ে সংগঠনের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হচ্ছে অযোগ্যদের হাতে। 

পদত্যাগকারীরা বলছেন, পদত্যাগ ও দল ত্যাগের এটা শেষ নয়, শুরু মাত্র। বিএনপি, যুবদল ছাড়াও অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনেও বিদ্রোহ চলছে। পদত্যাগ ও দল ত্যাগের আরও ঘোষণা আসবে শিগগির। 

এদিকে গতকাল থেকে আরেকটি গুঞ্জন শুরু হয়েছে। সূত্র বলছে, স্বেচ্ছাসেবক দল ও তাঁতীদলের শীর্ষ পর্যায়ের পর এবার যেকোন সময় পদত্যাগ করতে পারেন সিলেট জাসাস কয়েক শতাধিক নেতৃবৃন্দ।

এব্যাপারে সিলেট জেলা জাসাসের সাংগঠনিক সম্পাদক রায়হান এইচ খান সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, এটা একটি আদর্শিক লড়াই, আপনারা দেখছেন এখানে একজন সামসুজ্জামান জামান কে আর আমরা দেখছি ৩৬ বছর ধরে আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রভাগে থেকেও ন্যায় থেকে বঞ্চিত একজন বীর যোদ্ধাকে! আমরা পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি।আমরা আশাবাদী কেন্দ্র সঠিক ভাবে উনাকে মূল্যায়িত করে আবার স্ব-সম্মানে ফিরিয়ে আনবে,একটা প্লাটফর্মে আসলে ন্যায়বিচার না থাকলে আপনি সে প্লাটফর্মে থাকার কোন মানে  থাকে না’।

পদত্যাগের একটা গুঞ্জন শুরু হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সময় হলে সব জানতে পাবেন।

সিলেট প্রতিদিন/এমএ

ফেসবুক পেইজ