আজ আদালতে হাজির করা হবে পরীমনিকে
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৫ অপরাহ্ন

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশ ২০২১-০৮-১৩ ০৪:৫০:৪৩
আজ আদালতে হাজির করা হবে পরীমনিকে

রাজধানীর বনানী থানায় দায়ের করা মাদক মামলায় চিত্রনায়িকা পরীমনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ড শেষে আবারও আদালতে হাজির করা হবে। শুক্রবার দুপুরে তাদেরকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হবে বলে জানা গেছে। মাদক মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডলের আদালতে পরীমনি ও দীপুর শুনানি হবে।

আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার পরীমনি ও আশরাফুল ইসলাম দীপুর দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবব্রত বিশ্বাস। এর আগে গত ৫ আগস্ট পরীমনি ও দীপুর চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ। এরও আগে ৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাব। পরীমনির বাসা থেকে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়। আটকের পর তাদের নেওয়া হয় র‍্যাব সদরদফতরে। সেখানেই বুধবার রাতে কাটে তাদের।

বৃহস্পতিবার র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মাদক আইনে পরীমনি ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে।  সেদিনই তাকে আদালতে নেওয়া হয়।

এর আগে ৪ আগস্ট র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তাৎক্ষণিক নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লাইভে আসেন পরীমনি।  এ সময় র‌্যাবের পক্ষ থেকে পরীমনিকে তার বাসায় অভিযানের কথা জানানো হয়।  কিন্তু তিনি লাইভে এসে ভিন্ন ধরনের তথ্য দেন। লাইভে পরীমনি বলেন, আমি ঘুমাইতেছিলাম। বাসার নিচে মেইনগেটে সব ভাঙচুর করে তারা ওপরে চলে আসছে। এখন বাসার গেট ভাঙচুরের চেষ্টা করছে।  বারবার কলিংবেল বাজাচ্ছে।  পুলিশসহ কেউ শুনছে না, আমি সবাইকে ফোন করলাম, কেউ আসছে না। মরে গেলে আসবেন ভাই? তিনি আরও বলেন, আমার মনে হচ্ছে এরা ডাকাত।  একেক জনের একেক রকমের চেহারা।  এরা যদি ডাকাত হয় কী করবেন? আমি এটার ভয় করছিলাম।  আমি আজ লাইভ কাটব না। এখানে থানা থেকে আসতে কতক্ষণ লাগে? মানুষ কি মরে যাবে? তারা নাকি কেউ জানে না, কোন থানা থেকে আসছে, সিআইডি না র‌্যাব কেউ কিছু বলতে পারছে না।

পরীমনি সবার উদ্দেশে আরও বলেন, আমি বুঝতেছি না আমি মরে গেলে আসবেন? আমি তো হার্ট আট্যাক করব। ব্রেনস্ট্রোক করে মরে যাব। এটা একদম টর্চার। লাইভে থেকে আলোচিত এই চিত্রনায়িকা কারও একজনের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। তখন তাকে বলতে শোনা যায়, আমি মরে যাব। আর পৃথিবী দেখবে না! আমি লাইভ কাটব না। আমি দেখিয়ে মরব।  আমার সঙ্গে কেউ কিছু করে পার পাবে না। আর মেরে ফেললে তো কোনো কিছু করার নেই।

সিলেট প্রতিদিন/এমএনআই

ফেসবুক পেইজ