মৌলভীবাজারে মাতৃগর্ভে সন্তানের মৃত্যু: চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৩৭ অপরাহ্ন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশ ২০২১-১১-২৩ ০৯:২৮:২৪
মৌলভীবাজারে মাতৃগর্ভে সন্তানের মৃত্যু: চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলায় মাতৃগর্ভে 

সন্তানের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। 

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে আলট্রাসনোগ্রাফি রিপোর্টে মাতৃগর্ভে সন্তানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন ডাক্তার। পরে বিকেল ৪টায় অপারেশন করে মৃত সন্তান প্রসব করানো হয়।

জানা গেছে, মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার হামিদপুর গ্রামের গ্রামপুলিশ সরাফত আলীর স্ত্রী তানিয়া আক্তার প্রসবকালীন ব্যাথা নিয়ে রোববার মৌলভীবাজারের ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি হন। ভর্তির দিন কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শে আলট্রাসনোগ্রাফি করা হয়। তখন বাচ্চা ও মা সুস্থ আছেন বলে জানান চিকিৎসক। 

আজ মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) চিকিৎসকের পরামর্শে আবারও আল্ট্রাসনোগ্রাফি করালে রিপোর্টে বাচ্চার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হন চিকিৎসক।

স্বজনদের অভিযোগ, চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলায় বাচ্চাটির মৃত্যু হয়েছে।

সরাফত আলী বলেন, আমার স্ত্রী ১০ মাসের গর্ভবতী। গত ১৯ তারিখ ডাক্তার দেখিয়েছি। তিনি হাসপাতালে ভর্তির জন্য বলেন। আমাদের চেয়ারম্যান নকুল চন্দ দাসের পরমর্শে সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। আজ একজন ডাক্তার করে জানান বাচ্চা মাতৃগর্ভেই মৃত্যুবরণ করেছে। 

সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ না নেয়ার কারণেই তার সন্তানের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আহমেদ ফয়সল জামান বলেন, তাদের অভিযোগ শুনেছি। আলট্রাসনোগ্রাফিতে এসেছে বাচ্চা মায়ের পেটে মারা গেছে। এখানে অবহেলা কোথায় বুঝলাম না? গতকাল পর্যন্ত আলট্রাসনোগ্রাফি রিপোর্টে বাচ্চা সুস্থই ছিল।

তিনি বলেন, গতকাল পর্যন্ত বাচ্চার নড়াচড়া ছিল। আজ নড়াচড়া বন্ধের বিষয়টি মা বুঝতে পারেন নি। তাই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দেরি হয়েছে।

সিলেট প্রতিদিন/ইকে

ফেসবুক পেইজ