শ্রীমঙ্গলে সোনালী ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কৃষকরা
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:২১ অপরাহ্ন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি

প্রকাশ ২০২১-১১-২৩ ১২:২১:০৩
শ্রীমঙ্গলে সোনালী ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কৃষকরা

শ্রীমঙ্গলে কৃষকরা সোনালী ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কেউবা ধান কাটচ্ছেন, কেউ আঁটি বাঁধছেন। কেউ আবার ভাড় দিয়ে ধান বাড়ি নিয়ে যাচ্ছেন। দম ফেলার ফুরসত নেই কারও। মহাব্যস্ততায় দিন কাটছে কৃষকদের।এই উপজেলায় এবার আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকদের পরিবারে বইছে খুশির জোয়ার।

উপজেলা অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে আমনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৫ হাজার ৫৩১ হেক্টর জমিতে। চাষ হয়েছে ১৫হাজার ৩৩২ হেক্টর জমিতে। এর থেকে চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪৩হাজার ৩৩১ মেট্রিক টন। এবছর উফশী ও হাইব্রিড জাতের পাশাপাশি স্থানীয় জাতের আমন ধানের আবাদ করা হয়েছিল। কৃষকরা উফশী ও হাইব্রিড উভয় জাতের ধান আবাদ করে ভালো ফলন পেয়েছেন।

আমন চাষী কামাল মিয়া, মো. রাজু মিয়া, আলম, রুমান মিয়া ও আমির হোসেন সাথে আলাপকালে জানান, শুরুর দিকে পোকা মাকড়ের উপদ্রুপ ছিলো বেশি। সেটি কয়েক দফায় কীটনাশক প্রয়োগের পর অনেকটাই কমেছে। এবং খরচও বাড়তি হয়েছে। তারপরও ভালো ফলন হওয়ায় বাড়তি খরচটুকু পুষিয়ে আসবে। বর্তমান বাজারে ধানের যে দাম রয়েছে সেই দাম অব্যাহত থাকলে কৃষকদের লাভবান হবেন।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিলুফার ইয়াসমিন মোনালিসা সুইটি জানান, উপজেলায় আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ও সময়মতে বৃষ্টি হওয়ায় এবং কৃষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে ও কৃষি অফিসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এ বছর ফসল ভালো হয়েছে এবং বাম্পার ফলনও হয়েছে। তাই কৃষকরাও খুশি বলে তিনি দাবী করেন।

সিলেট প্রতিদিন/এমএ

ফেসবুক পেইজ