বৈশ্বিক মহামারীতে মানবিকতায় ছুটেচলা শাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা রানা
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪৮ পূর্বাহ্ন

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি

প্রকাশ ২০২১-১০-১০ ০৪:৪৩:২০
বৈশ্বিক মহামারীতে মানবিকতায় ছুটেচলা শাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা রানা

বৈশ্বিক মহামারী করোনাকালীন সময়ে সুবিধাবঞ্চিত মানুষ এবং রোগীদের স্বেচ্ছাসেবা দেয়ার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী এবং বিভাগ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আহমেদ রানা। 

তিনি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে থেকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন মহামারী শুরু থেকেই। করোনা আক্রান্তদের সেবা প্রদান করতে গিয়ে নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। টিউশন থেকে উপার্জিত অর্থ, পরিবার নিকটাত্মীয় এবং তার রাজনৈতিক দলের সহযোগিতা ও দিকনির্দেশনায় সুবিধাবঞ্চিতদের এবং করোনা কালীন সময়ে অসুস্থ মানুষের আর্থিক, মানসিক, শারীরিক, সর্বোপরি সার্বিক দিক থেকে মানুষের পাশে থেকেছেন, পৌঁছে দিয়েছেন মানুষের উপহার দ্বারে দ্বারে।

অসুস্থ ব্যক্তিদের বিশেষত করোনা আক্রান্তদের সেবা দিতে তিনি একটি টিম গঠন করেন। তিনি রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতাল, শমরিতা হাসপাতাল, আলী আজগর হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, গ্রীন লাইফ হাসপাতাল, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে অসুস্থদের সেবা দিতে কাটিয়েছেন অনেক দিন, নির্ঘুম রাত। অর্থের অভাবে চিকিৎসা থেমে থাকা মানুষের পাশেও থেকেছেন তিনি, নিঃস্বার্থ সেবা দিয়ে যাচ্ছেন মানবিক এই ছাত্রনেতা। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর প্লাজমা এবং মহামারীর সময়ে শরীরের রক্ত দিয়েও সহায়তা করে যাচ্ছেন।

ইফতেখার আহমেদ রানার গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলায়। গ্রামের মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে করেছেন মাইকিং, মাস্ক বিতরণ এবং স্যানিটাইজার বিতরণ, চা শ্রমিকদের করোনা ভাইরাস সম্পর্কে অবহিত করতে দুই দিনব্যাপী কর্মসূচি চালিয়ে যান। ঈদ আনন্দ সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সাথে ভাগ করে নিয়েছেন বিভিন্ন উপহার প্রদানের মাধ্যমে।  

তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এবং সাধারণ শিক্ষার্থী সহ যারা দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ভূমিকা রেখেছে তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন এবং তাদের জন্য জাতীয় সম্মান প্রত্যাশা করেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট এবং যেসব দিকে করোনার বিস্তার ঘটছে সেই দিকগুলো নজরে আনার দাবি জানান বিশেষভাবে গণপরিবহন এবং গ্রামীণ মানুষদের সচেতনতা বৃদ্ধি। বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন তার মা'র প্রতি যিনি তার অনুপ্রেরণার উৎস।

ইফতেখার আহমেদ রানা বলেন,"আমি মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি আমার সুযোগ হয়েছে দেশের ক্রান্তিলগ্নে ভূমিকা রাখার এবং আশা রাখি পরকালে তার প্রতিদান পাবো, দেশের এই দুরবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য শিক্ষা সমাজের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা উচিত যেহেতু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সবকিছু খুলে দেওয়া হচ্ছে সেহেতু সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মানানোর উপায় বের করাটা অনেক বড় চ্যালেঞ্জ।"

উল্লেখ্য, ইফতেখার আহমেদ রানা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের অনুসারী।

সিলেট প্রতিদিন/এমআরএম

ফেসবুক পেইজ