সোমবার, ২৪ Jun ২০১৯, ০৬:২২ অপরাহ্ন

সেই কালো রাত

সেই কালো রাত

সেনা সমর্থিত ১/১১ এর অবৈধ ক্ষমতার বলির পাঠা হয়েছিলেন সিলেটের কয়জন নেতা?
রাত ২ টা হঠাৎ করে আমার বাসার দরজা ভেঙ্গে ফেলার চেষ্টা র‍্যাব সদস্যদের,
আমি লুকিয়ে পড়লাম সান সেটের উপর আমার বোন দরজা খুলে দিতে ২০/২৫ জন সদস্য দ্রুত ঘরে ডুকে বিতরে এসে আমাকে খুজতে থাকে, কিছুক্ষণ পরে সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম রহমান চৌধুরী রাজন ও গোলাম হাছান চৌধুরী সাজন কে নিয়ে এসে একটি আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে বলে এটা শাহিনের রুমে পাওয়া গিয়েছে স্বাক্ষর করেন, এর পর সান সেটের উপর থেকে আমাকে দরে ঘর থেকে বের করার পর দেখি শত শত র‍্যাব সদস্যরা রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে প্রায় ২০০ ফুট দুরে ৮০/৯০ টা গাড়ী আমাকে তুলে সাইরেন বাজিয়ে মেজরটিলা কার্যালয়ে নিয়ে নির্যাতন শুরু,

দিনের বেলা শেষে যখন আবার অনেক রাত হল তখন অন্ধকার লকাপের দরজা খুলে একজন কে ডুকাল এবং খুব খারাপ ব্যাবহার করে চলে গেল লাইটের আলো জালিয়ে দেখি

সিলেটের কিংবদন্তি সাবেক ছাত্রনেতা আমার পরম শ্রদ্ধাভাজন প্রিয় নেতা বাবু বিধান কুমার শাহ মাটিতে শুয়ে,
শরীরে মশায় কামড়াচ্ছে আমার কাছে কয়েল ছিল জালিয়ে দাদার মাতার কাছে রেখে গুমিয়ে পড়ি,
রাত ৪ টায় আবার প্রচুর র‍্যাব এসে লকাপ খুলে বিতরে ডুকে দাদাকে হাত পিছনের দিকে নিয়ে হেন্ডকাপ লাগিয়ে চোখে কালো কাপড় পরিয়ে বাহিরে নেয়ার প্রস্তুতি,

আমার বুকের ভেতর দড়পর এত বাড়ল কারন এই সময় আসামি হিসেবে যাদের বাহির করে তাদের ক্রসফায়ার করে ফেলে,
আমি দাদার পিটে হাত ভুলিয়ে আল্লার হাওলা করি,

আমার গুম আর আসেনা হারামজাদারা দাদা কে মেরে ফেলেছে মনে হচ্ছে চোখে জল এমনিতে আসতেছে,

সকাল ৭ টায় আমাকে টেক্সটাইল লকাপ থেকে এই অফিসের লকাপে নেওয়ার জন্য গাড়িতে তুলে আমি কান্না করতে করতে ভাবতেছি দাদাকে হত্যা করে ফেলেছে মনে হয়?

কিছুক্ষণ পরে তাদের অফিসের লকাপের পাশে গাড়ী থেকে নেমে দাড়াই, লকাপের রডের ফাক দিয়ে দেখি একজন লোক পায়ের উপর মাতা রেখে শুয়ে আছে, লকাপের দরজা খুলার সাথে সাথে শব্দে সেই লোক মাতা তুলে আমার দিকে তাকিয়ে আছে সেই লোকজে আমার শ্রদ্ধাভাজন প্রিয় বিধান দা,

আমি দাদার কাছে যেতে চাইলে ইশারায় দাদা আমাকে মানা করেন এবং বলেন হানাদার বাহিনী যদি বলে যে,
আমি দাদার পরিচিত কি না আমি যেন না করি তার কারন আমাকে মারবে যদি পরিচিত বলি।
এমন নেতার নেতৃেত্বে সিলেট ছাত্রলীগের সুযোগ্য ছাত্রনেতার জন্ম হয়েছে অনেক, সিলেটের সাবেক সকল নেতার সৌভাগ্যের সাথে আমার ও সুযোগ হয়েছিল,

আগামীতে দাদাদের সঠিক মূল্যায়ন তৃণমূলের সময়ের দাবি।

লেখক: শাহীন আহমদ

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © 2019 sylhetprotidin24