সোমবার, ২৪ Jun ২০১৯, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে বাঁধ নিমার্ণ, পানি বন্দি শ্রীমঙ্গলের ভুনবীর গ্রামের মানুষ

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে বাঁধ নিমার্ণ, পানি বন্দি শ্রীমঙ্গলের ভুনবীর গ্রামের মানুষ

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ শ্রীমঙ্গল উপজেলাধীন ২ নং ভুনবীর ইউনিয়ন ৪ নং ওয়ার্ডের ইমাল গ্রামের ভুনবীর উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল শিক্ষার্থীসহ গ্রামের কয়েকটি পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েন।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের জন্য বাঁধ নিমাণে বৃষ্টির পানি জমে বাড়িঘর, ফসলী জমি এবং চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে তাদের যাতায়াতের একমাত্র এই সড়ক। সড়ক ও ফসলী নিচু হওয়ায় বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে রয়েছে । এ গ্রামের রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করা কয়েক শতাধিক মানুষ ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের মারাত্মকভাবে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কিন্তু তা দেখার যেন কেউ নেই।

বিশেষ করে জলাবদ্ধতায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করতে সমস্যা হয়। কারন এ সড়ক দিয়েই শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের ঢুকে এবং বের হয়। কিন্তু বৃষ্টির পানি জমে থাকায় ২/৩ মাস যাবৎ তাদের চলাচল করতে সমস্যা হয়। এ কারনে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে যেতে চান না। ইমাল গ্রামের ওই স্কুলের পাশে প্রায় ২০টি পরিবার আছে।

জলাবদ্ধতার কারণে তাদেরও দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
শিক্ষার্থীরা জানান, বৃষ্টি হলে বিদ্যালয়ে আসতে তাদের ভালো লাগে না। কারণ, বৃষ্টির পর বিদ্যালয়ে প্রবেশ করা কঠিন হয়ে পড়ে। অনেক সময় তারা নিজেরা পানি সরানোর চেষ্টা করে। তাতেও কাজ হয় না। তারা বৃষ্টির পর দ্রুত পানি নিষ্কাশন চায়। জলাবদ্ধতার কারণে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিও কমে যায়। এতে পাঠদানও ব্যাহত হচ্ছে।

সোমবার সরজমিন গিয়ে দেখা যায় জলাবদ্ধতা কারণে বিদ্যালয়ে কেউ যায়নি। এ সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেন এলাকাবাসী।

তবে অপর এক সুত্রে জানা গেছে,অবৈধভাবে শামসু মিয়া নামে এক ব্যক্তি তার জমিসহ সরকারি খাস জমি একত্রে বাধ দিয়ে বালু উত্তোলন করায় আশপাশের ফসলী জমি ডেবে গিয়ে বৃষ্টি পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে ফলে পানি জমে থাকায় কোনো ফসল করা সম্ভব হচ্ছে না।আর বৃষ্টি হলেই বাড়িঘরে পানি জমে থাকে। জলাবদ্ধতার কারণে গ্রামের একটি কবরস্থানে পানির নিচে ডুবে রয়েছে। এবং অনেক স্থানে কবরস্থানের পাড় ভেঙ্গে গিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © 2019 sylhetprotidin24